পাঁচবিবিতে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর উন্নয়নে কার্যক্রম শুরু

ন্যাশনাল ডেস্ক::সরকারের পাশাপাশি পাঁচবিবি উপজেলায় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির (আদিবাসীর) উন্নয়নে কাজ করছে কিছু বেসরকারি প্রতিষ্ঠান (এনজিও)। উপজেলায় সাঁওতাল, উড়াও, মাহাতো, পাহান, মাহালী, মালো, বর্মণ, রবিদাস, সিং, চৌহাল, মাল পাহাড়ি, তুরী, লোহারা প্রভৃতি সম্প্রদায়ের আদিবাসী রয়েছে।জয়পুরহাট জেলায় ৬১ হাজার ১১৭ জন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির মধ্যে পাঁচবিবি উপজেলায় ৩৪ হাজার ১১৩ জনের বসবাস। আদিবাসীদের উন্নয়নের কাজ করছে পামডো, ওয়ার্ল্ড ভিশন, দুস্থ মানবতার সেবা সংস্থা (ডিএমএসএস), আশ্রয় ও পল্লীশ্রী। ওয়ার্ল্ড ভিশনের সহযোগিতায় পাঁচবিবি উপজেলা আদিবাসী মাল্টি পারপাস ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (পামডো) আদিবাসীদের উন্নয়নে নেশাপানের বিরুদ্ধে প্রচার, বাল্য বিবাহ রোধ, সহায় সম্পদ রক্ষাসহ বিভিন্ন সামাজিক বিষয়ে প্রচারণার মাধ্যমে তাদের সচেতন করে তোলে। ওয়ার্ল্ড ভিশনের সহযোগিতায় তাদের জন্য ৩৬টি প্রি-স্কুল স্থাপন করা হয়েছে।ওইসব স্কুলে বৈষয়িক শিক্ষার পাশাপাশি শিশুদের প্রাইমারী স্কুলমুখী করা, বৃহত্তর সমাজের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিয়ে চলার শিক্ষাসহ নিজ সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য রক্ষা এবং চর্চা করার মৌলিক বিষয়ও শিক্ষা দেয়া হয়। এছাড়াও সরকারি ও বেসরকারি দাতা এবং সহযোগী সংস্থার সহযোগিতায় আদিবাসী জনগোষ্ঠিকে দারিদ্র্যমুক্ত করা, সুশিক্ষিত করা, সমাজ ও জাতীয় জীবনে অবদান রাখার জন্য নেতৃত্ব সৃষ্টির কাজ করে। সরকারি আর্থিক সহায়তায় অদিবাসী অধ্যুষিত এলাকা পাঁচবিবির উচাই গ্রামে আদিবাসী সাংস্কৃতিক ও একডেমিক ভবন নির্মাণ করা হয়েছে এবং উন্নত কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন করা হয়। সেখানে প্রতি বছর ৮০ জন প্রশিক্ষণ নিয়ে বের হয়।    পামডোর সভাপতি ডা. দ্বিজেন্দ্র নাথ সরকার জানান, বর্তমান আদিবাসীদের উন্নয়নে যৌথভাবে কাজ করছে পামডো, ওয়ার্ল্ড ভিশন ও পল্লীশ্রী।

Leave a Reply