দুর্লভ স্নেক ক্যাকটাস যশোরে

স্নেক ক্যাকটাস। এ দেশে দুর্লভ জাতের একটি ক্যাকটাস। পাহাড়ি অঞ্চলের এ গুল্ম জাতীয় গাছে একযুগ পরপর এক সঙ্গে অনেক ফুল ফোটে।

মূল শেকড় থেকে বেড়িয়ে আসা কাটাযুক্ত একাধিক লতা সাপের মতো এঁকেবেঁকে ছড়িয়ে যায় চারপাশে। এর লতার একটি অংশই কেটে মাটিতে লাগালে-সেখান থেকেই জন্ম নেয় নতুন স্নেক ক্যাকটাস।

পাহাড়ি গাছ হলেও ধৈর্য আর পরিচর্যা করলে সমতলেও ফুল ফোটানো সম্ভব। এ সম্ভবকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন যশোর শহরের বেজপাড়া কবরস্থানের সামনের বাসিন্দা সার্ভেয়ার বদরুদ্দোজা বাদল। তার ভাষ্য মতে, প্রায় ১৩ বছর আগে ঝিকরগাছা থেকে জনৈক ব্যক্তির কাছ থেকে একটি ডাল নিয়ে আসেন তিনি। এরপর ফেলে দেওয়া মোটরসাইকেলের হেলমেটকে টব বানিয়ে ডালটি পুতে দেন বাদল। তারপর ১২ বছর পরিচর্যা। দোতলা বাড়ির ছাদ ছাপিয়ে অসংখ্য লতা মাটি ছোঁয়ার চেষ্টা করছে।

অবশেষে বাদল সফল। মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে ফুল ফোটা শুরু হয়। একটি দুটি নয়; বাড়ির চারপাশে ফুটেছে ৪৩টি ফুল। রাত যত বাড়তে থাকে ফুলের আকারও বড় হতে থাকে। মধ্যরাতের পর সুভাস ছড়িয়ে স্নেক ক্যাকটাস জানান দেয় ‘আমি ফুটেছি’।

সূর্য ওঠার আগেই আবার সাদা রঙের ফুলগুলো ঝরে পড়ে। এ জন্য অনেকেই এর নাম দিয়েছেন ‘লাজুক 

Leave a Reply